1. admin@ourbhola.com : আমাদের ভোলা : আমাদের ভোলা
শুভ জন্মদিন ফুটবল জগতের কিংবদন্তী লিওনেল মেসি – আমাদের ভোলা
নোটিশ :
প্রিয় ভিজিটর, দ্বীপজেলা ভোলার বৃহত্তম ওয়েবসাইটে আপনাকে স্বাগতম...

শুভ জন্মদিন ফুটবল জগতের কিংবদন্তী লিওনেল মেসি

  • আপডেটের সময় : সোমবার, ২৪ জুন, ২০১৯
  • ৭৯৪ বার পড়েছেন

লিওনেল আন্দ্রেস “লিও” মেসি কুচ্চিত্তিনি (স্পেনীয় উচ্চারণ: [ljoˈnel anˈdɾes ˈmesi] (শুনুন); জন্ম: ২৪ জুন ১৯৮৭) একজন আর্জেন্টাইন পেশাদার ফুটবল খেলোয়াড় যিনি স্পেনের সর্বোচ্চ স্তরের পেশাদার ফুটবল লীগ প্রতিযোগিতা লা লিগা তে ফুটবল ক্লাব বার্সেলোনা এবং আর্জেন্টিনার জাতীয় ফুটবল দলের হয়ে একজন আক্রমণভাগের খেলোয়াড় হিসেবে খেলেন। তিনি বর্তমানে আর্জেন্টিনা জাতীয় দল এবং বার্সেলোনার অধিনায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। অনেক ধারাভাষ্যকার, ফুটবল বিশেষজ্ঞ, কোচ এবং খেলোয়াড় মেসিকে বর্তমান সময়ের সেরা এবং সর্বকালের অন্যতম সেরা ফুটবলার হিসেবে গন্য করে থাকেন।

শুভ জন্মদিন প্রিয় বস লিওনেল মেসি

লিওনেল মেসি রেকর্ড পাঁচবার ব্যালন ডি অর জয় করেছেন, যার মধ্যে চারটি জিতেছেন টানা চার বছরে। পাশাপাশি রেকর্ড পাঁচবার ইউরোপীয় গোল্ডেন শু ও জিতেছেন। তিনি তার পুরো পেশাদার জীবন পার করেছেন বার্সেলোনায় যেখানে মোট ৩২টি শিরোপা জিতেছেন, যার মধ্যে রয়েছে ৯টি লা লিগা, ৪টি উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগ এবং ৬টি কোপা দেল রে। একজন অসাধারণ গোলদাতা হিসেবে মেসির দখলে রয়েছে লা লিগায় সর্বোচ্চ গোল (৪০৮), লা লিগায় এক মৌসুমে সর্বোচ্চ গোল (৫০), ইউরোপে এক মৌসুমে সর্বোচ্চ গোল (৭৩), এক পঞ্জিকাবর্ষে সর্বোচ্চ গোল (৯১), এল ক্লাসিকোর ইতিহাসে সর্বোচ্চ গোল (২৬) এবং চ্যাম্পিয়ন্স লিগে সর্বোচ্চ হ্যাট্রিকের (৮) রেকর্ড। পাশাপাশি মেসি একজন সৃষ্টিশীল প্লেমেকার হিসেবেও সেরা। তিনি লা লিগা (১৬৩) এবং কোপা আমেরিকার (১১) ইতিহাসের সর্বোচ্চ গোলে সহায়তাকারীর রেকর্ডেরও মালিক। জাতীয় দল এবং ক্লাবের হয়ে তিনি ৬০০-এর অধিক পেশাদার গোল করেছেন।

বাল্যকাল

মধ্য আর্জেন্টিনায় জন্ম এবং বেড়ে ওঠা মেসি ছোট বেলায় গ্রোথ হরমোন সংক্রান্ত জটিলতায় আক্রান্ত হন। ১৩ বছর বয়সে তিনি বার্সেলোনায় যোগ দিতে স্পেনে চলে আসেন, কারণ তারা তার চিকিৎসার খরচ বহনের দায়িত্ব নিয়েছিল। বার্সেলোনার যুব প্রকল্পে দ্রুত অগ্রগতির মধ্য দিয়ে ১৭ বছর বয়সে ২০০৪ সালের অক্টোবর মাসে তার বার্সেলোনা মূল দলে অভিষেক হয়। ক্যারয়ারের শুরুতে ইঞ্জুরি প্রবণ হলেও ২০০৭ সাল নাগাদ তিনি নিজেকে ক্লাবের অবিচ্ছেদ্য অংশে পরিণত করেন। ২০০৭ সালের ব্যালন ডি অর এবং ফিফা বর্ষসেরা পুরস্কারে তিনি প্রথম তিনজনের একজন হিসেবে স্থান করে নেন এবং পরবর্তী বছর তিনি উভয় পুরস্কার জয় করেন। তার প্রথম অবিচ্ছিন্ন মৌসুম ছিল ২০০৮-০৯ যেখানে তিনি বার্সেলোনাকে ট্রেবল জয়ে সাহায্য করেন। ২২ বছর বয়সে মেসি রেকর্ড ভোটের ব্যবধানে ব্যালন ডি অর এবং ফিফা বর্ষসেরা পুরস্কার জয় করেন।

পরিসংখ্যানগত দিক দিয়ে মেসির সেরা মৌসুম ছিল ২০১১-১২, যখন তিনি লা লিগা এবং ইউরোপে এক মৌসুমে সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড গড়েন এবং বার্সেলোনার ইতিহাসের সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেন। মেসির সেরা ফর্মের আরেকটি ঝলক দেখা যায় ২০১৪-১৫ মৌসুমে যখন তিনি লা লিগা এবং উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগে সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড ভেঙে দেন এবং বার্সেলোনাকে ঐতিহাসিক দ্বিতীয় ট্রেবল জয়ে সাহায্য করেন। ২০১৮ সালের অগাস্ট মাসে মেসি বার্সেলোনার অধিনায়কের দায়িত্ব লাভ করেন।

সর্বোচ্চ গোলদাতা

মেসি আর্জেন্টিনার ইতিহাসের সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা। বয়সভিত্তিক পর্যায়ে মেসি আর্জেনটিনাকে ২০০৫ ফিফা ইয়ুথ চ্যাম্পিয়নশিপ জেতাতে সাহায্য করেন যে টুর্নামেন্টে তিনি সর্বোচ্চ গোলদাতা এবং সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার জয় করেন। এছাড়া তিনি ২০০৮ গ্রীষ্মকালীন অলম্পিকে তিনি স্বর্ণপদক জয় করেন। ২০০৫ সালের অগাস্টে তার আর্জেন্টিনা জাতীয় দল এ তার অভিষেক হয়। ২০০৬ ফিফা বিশ্বকাপ এ গোল করার মধ্য দিয়ে তিনি সর্বকনিষ্ঠ আর্জেন্টাইন হিসেবে বিশ্বকাপে গোল করার কৃতিত্ব অর্জন করেন। ২০০৭ কোপা আমেরিকায় তিনি টুর্নামেন্ট সেরা যুব খেলোয়াড়ের পুরস্কার লাভ করেন যে টুর্নামেন্টে আর্জেন্টিনা রানার-আপ হয়। ২০১১ সালের অগাস্টে তিনি আর্জেন্টিনা দলের অধিনায়কের দায়িত্ব পান। অধিনায়ক হিসেবে তিনি আর্জেন্টিনাকে টানা তিনটি টুর্নামেন্টের ফাইনালে তোলেন: ২০১৪ ফিফা বিশ্বকাপ, ২০১৫ কোপা আমেরিকা এবং ২০১৬ কোপা আমেরিকা। তিনি ২০১৪ ফিফা বিশ্বকাপে গোল্ডেন বল অর্জন করেন।

সূত্রঃ উইকিপেডিয়া

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আপনার ফেসবুক আইডি থেকে কমেন্ট করুন

উক্ত লেখাটি সোসাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো লেখা
© All rights reserved © 2019 আমাদের ভোলা
Developed BY Mohona IT