1. admin@ourbhola.com : আমাদের ভোলা : আমাদের ভোলা
ম্যাচুয়েরিটি - তানজিলা তাসফি - আমাদের ভোলা
মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:০৬ অপরাহ্ন
নোটিশঃ
প্রিয় ভিজিটর, দ্বীপজেলা ভোলার বৃহত্তম ওয়েবসাইটে আপনাকে স্বাগতম...

ম্যাচুয়েরিটি – তানজিলা তাসফি

  • আপডেটের সময় : শুক্রবার, ২৩ জুলাই, ২০২১
  • ১৬৩ বার পঠিত
ম্যাচুয়েরিটি - তানজিলা তাসফি

ম্যাচুয়েরিটি – তানজিলা তাসফি

ম্যাচুয়েরিটি শব্দটা খুব গম্ভীর, ভারী প্রকৃতির।মানুষ কখনোই ম্যাচিউরড হয় না।আামাদের চারপাশের মানুষ,আমাদের সমাজ আামাদেরকে ম্যাচিউরড করে দেয়।
বান্দুবীর সাথে রাস্তায় হেঁটে যাওয়া ১৫ বছরের তরুণী যখন একটু শব্দ করে হেসে ফেলে, তখন পাশ থেকে হেঁটে যাওয়া ৪৫ বছরের আন্টি বলে
-কি অসভ্য মেয়ে রাস্তাঘাটে হাসাহাসি করে😠
মুহূর্তেই মেয়েটির মুখ কালো মেঘে ঢেকে যায়,সে ভিতরে ভিতরে প্রচণ্ড ভেঙে পরে।অল্প বয়সী মেয়েটি ভাবতে থাকে আমি কি বড় কোন অপরাধ করে ফেললাম?😞 সে এতটাই দমে যায় যে এর পর থেকে কোথাও গেলে সে হিসেব করে হাসে।

ব্রেকাপের পর


ব্রেকাপের পর যখন কষ্ট সহ্য করতে না পেরে ছোট বোনটির সামনে আবোল-তাবোল বকতে থাকে,তখন বোন যদি জিজ্ঞেস করে আপুনি তোর কি হয়েছে? কেউ তোকে কিছু বলেছে? তখন সে সজোরে ধমকিয়ে ওঠে..তোকে এত কিছু জানতে হবে না.. ছোট ছোটোর মত থাক😡এর পর থেকে সে কিন্তু আর জিজ্ঞেস করার সাহস পায় না।


পরিবারের সবাই যখন কোন সিদ্ধান্ত নেয় তখন সবচেয়ে ছোট সদস্যটি কিছু বলতে গেলে তাকে থামিয়ে দেওয়া হয়,তুই কি বুঝিস?? বড়দের মাঝে কথা বলবিনা একদম।সে চুপ হয়ে বসে থাকে🤐


২২ বছর বয়সী ভাইয়ার চোখ যখন ঝালমুড়ি হাতে সুন্দরী তরুণীর টোল পরা গালে আটকে যায়…তখন সে তাকে তার কল্পনার প্রেয়সী ভেবে ফেলে..দিন-রাত তার পিছুপিছু ছুটতে থাকে।আড়ালে ফুল চকলেট গিফ্ট করে।সকাল সন্ধা তার কোচিং এর আশেপাশে ঘুরঘুর করতে থাকে।অবুঝ মেয়েটি ভাবে এই লোকটা আমার জন্য পারফেক্ট না হলে কি আমার পিছনে পরে থাকতো?☺️শুরু হয়ে যায় তার জীবনের নতুন অধ্যায়..

সে নিজেকে খুব সুখী ভাবতে থাকে,কেননা কেউ একজন আছে যে তার আবোল-তাবোল সব কথা মন্ত্রমুগ্ধ হয়ে শোনে,কেউ তার বাচ্চামো গুলোকে সাপোর্ট করে।তখন চারপাশের কারো অবহেলা অপমান সে গায়ে মাখে না……কিন্তু কিছু মাস পর যখন ভাইয়াটা বুঝতে পারে এই বাচ্চাকে দিয়ে তার পোষাবে না,,তখন সে মেয়েটিকে ইগনর করতে থাকে…কোন এক দিন বলেই দেয় তোমার সাথে আমি মানিয়ে নিতে পারবো না,তুমি আসলেই অনেক ছোট আর অবুঝ 😒 তখন মেয়েটির কাছে পুরো পৃথিবীটা বিষাক্ত মনে হয় সে সহ্য করতে না পেরে আত্নহত্যার মত জঘন্য পথ বেছে নেয় আর না হলে খুব বেশী ম্যাচিউরড হয়ে যায়।

মরে যাওয়ার পর কারন খুঁজতে না গিয়ে আগেই সচেতন হোন,ছোট বলে আপনি তাকে যখন তখন অপমান অবহেলা করবেন না।ছোটদের প্রতি যত্নশীল হোন, তার মতামতের গুরুত্ব দিন,তাকে সময় দিন।আর ভাইয়েরা আপনার হেয়ালিপনার জন্য কারো জীবন নষ্ট হলে নিজেকে কোনোদিন ক্ষমা করতে পারবেন না।মানসিক যন্ত্রনার চেয়ে বড় কষ্ট পৃথিবীতে দ্বিতীয়টি নেই।নিজে ভালো থাকুন প্রিয়োজনকে ভালো রাখুন।🙂

দাদিমার কাছে চিঠি – তানিশা ইসলাম নূর

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আপনার ফেসবুক আইডি থেকে কমেন্ট করুন

উক্ত লেখাটি সোসাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো লেখা
© All rights reserved © 2021 আমাদের ভোলা
Development By MD Rasel Mahmud