1. admin@ourbhola.com : আমাদের ভোলা : আমাদের ভোলা
জাগ্রত বিবেক আজ নিশ্চুপ কেন? ::::: মোঃ রাসেল মাহমুদ - আমাদের ভোলা
বুধবার, ১৭ অগাস্ট ২০২২, ০৬:৩৬ অপরাহ্ন
নোটিশঃ
প্রিয় ভিজিটর, দ্বীপজেলা ভোলার বৃহত্তম ওয়েবসাইটে আপনাকে স্বাগতম...

জাগ্রত বিবেক আজ নিশ্চুপ কেন? ::::: মোঃ রাসেল মাহমুদ

  • আপডেটের সময় : সোমবার, ১৩ এপ্রিল, ২০২০
  • ১১৫৪ বার পঠিত

পৃথিবীর সবচেয়ে বড় আদালত মানুষের বিবেক। বলা হয়ে থাকে আবেগ নয় বিবেক দিয়ে কাজ করো। নিজের বিবেক নিজের কাছে,আপনার কাজ আপনি করবেন। তবে, জাতিরও একটি বিবেক আছে। আর জাতির জাগ্রত বিবেক হলো সাংবাদিক।
সাংবাদিকতা একটি মহান পেশা। যে পেশায় সবাইকে মানায় না।

যাকে মানায় তার বিবেক কখনো ঘুমায় না। নিজের বিবেক নিজের কাছে আর জাতির বিবেক সাংবাদিক আছে।

যখন কিনা নিজের বিবেক ঘুমায় তখন শুধু নিজের ক্ষতি হতে পারে তবে, দেশের বা একটি জাতির অন্য কারো ক্ষতি হবে না।

কিন্তু যখন কি না দেশের জাগ্রত বিবেক ঘুমায় তখন ব্যক্তির না একটি জাতির ক্ষতি হয়ে যায়। কিভাবে ক্ষতি হয়?
সাংবাদিকতা মানে জাগ্রত বিবেক ঘুমন্ত নয়। ঘুমিয়ে গেলে গোটা জাতির হবে অবক্ষয়।

এখানে জাগ্রত বিবেক বলতে আর ঘুমন্ত বিবেক বলতে আলাদা দুটি বিষয় বুঝায়। জাগ্রত বিবেক জাতির ভালো মন্দ দুটি দিক সত্যের মধ্য দিয়ে,অন্যায় অবিচার রুখে, মিথ্যা নয় সত্য দিয়ে তুলে ধরে।

অপবাদ নয় বাস্তব কথা ও তথ্য তুলে ধরে। সময়ের প্রয়োজনে ছুটে যায় অজানা সব গন্তব্যে। ঠিক বিপরীত ঘুমন্ত বিবেক- যার শুরু হয় মিথ্যা দিয়ে আর শেষ হয় কলহ,বিশৃঙ্খলা,অত্যাচার,নির্যাতন এবং আরো হাজারো নিন্দিত কাজ দিয়ে।

মনে কষ্ট থাকলে কাঁদতে হয় – প্রিন্স বোরহান উদ্দিন

হে জাতির বিবেক জাগ্রত জনতার জাগ্রত বিবেক। তুমি সাংবাদিক, তুমি মহান পেশায় অধিষ্ঠিত, তুমি নিজের নয় একটি জাতির বিবেক,তুমি সময় নয় অসময়ও তথ্য সন্ধানী,তুমি ঘুমিয়ে বা কল্পনায় নয় বাস্তবে মাঠে ময়দানে লড়াকু বীর সৈনিক। তুমি সত্য তুলে নিন্দিত হও তবু, মিথ্যা বলে জাতির ধ্বংশ করো না।
তোমারই কথাকে সত্য বলে আমজনতা সামনে আগায়,পরে দেখি তোমার প্রতি তাদের সবটুকু বিশ্বাস হারায়। তবে কেন এই অপবাদ হবে তোমাদের? নিজে কি লজ্জিত হও না? লজ্জা লাগে না ভাবতে কিভাবে মানুষের নামে মিথ্যা বলি, ভয় দেখিয়ে টাকা নেই।

ভাবনা কি আসে না এটা একটি মহান পেশা, নেশা নয়। জীবনের সব বাধা পেরিয়ে এই পেশায় যারা কাজ করে নিত্য দিনই সত্য তুলে আনে শ্রদ্ধা জানাই তোমাদের হে বীর সৈনিক, জাগ্রত বিবেক।

আর নিন্দুকের নিন্দা থাকবেই তাই ধিক্কার জানাই তোমাদের মতো সাংঘাতিকদের যারা অন্যায় অবিচার চোখে পরে না,পরে না নিজের অপরাধ।

শুধু পরের দোষ খুঁজো, পরের ছেলে মেয়ে কি করছে সেটা নিয়ে বসে থাকো।আর নিজের সন্তান তার থেকে বেশি অপরাধে জড়িত খবর রাখো না। তারা এই পেশা ছেড়ে দাও। ভিক্ষা করে খাও তবু বলি মিথ্যার আশ্রয় না চলি।
♥আসুন হলুদ সাংবাদিকতা বর্জন করি,
সোনালি সমাজ বিনির্মাণ করি♥

Spread the love

আপনার ফেসবুক আইডি থেকে কমেন্ট করুন

উক্ত লেখাটি সোসাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো লেখা
© All rights reserved © 2021 আমাদের ভোলা
Development By MD Rasel Mahmud